COVID 19: কোভিডে শীর্ষে কলকাতা,৬ জেলায় মৃত্যু, আজ বিশ্বর্কমা পুজোয় কতটা সতর্ক রাজ্যবাসী

বাংলায় বিশ্বর্কমা পুজোর শুভ দিনে দৈনিক কোভিড সংক্রমণ  সামান্য কমলেও এখনও ৭০০ এর উপরেই রয়েছে।কোভিডে মৃত্যু ছুঁয়েছে এবার ৬ জেলায়, ফের মৃত্য়ুর তালিকায় উত্তরবঙ্গ। 

বাংলায় বিশ্বর্কমা পুজোর শুভ দিনে দৈনিক কোভিড সংক্রমণ  সামান্য কমলেও এখনও ৭০০ এর উপরেই রয়েছে।  স্বাস্থ্য ভবনের বুলেটিনে শুধুই তিন অঙ্কের সংখ্যায় দাঁড়িয়ে আছে কলকাতা- উত্তর ২৪ পরগণায়। আর সমস্ত জেলায় দৈনিক সংক্রমণ ৫০ এর নীচে। কোভিডে মৃত্যু ছুঁয়েছে এবার ৬ জেলায়। কিছুদিন বন্ধ থাকলেও ফের মৃত্য়ুর তালিকায় উত্তরবঙ্গ। বৃহস্পতিবারের স্বাস্থ্য ভবনের বুলেটিন অনুযায়ী রাজ্যে একদিনে আক্রান্ত হয়েছেন ৭০৭ জন  এবং  ৭ জনের মৃত্যু হয়েছে।  

বৃহস্পতিবারের স্বাস্থ্য ভবনের বুলেটিন অনুযায়ী,  মৃত্যুতে ৬ জেলার লিস্টে শীর্ষে  রয়েছে  দক্ষিণ ২৪ পরগণা । পশ্চিমবঙ্গে একদিনে করোনা নিয়ে মৃত্যুর সংখ্যা ৭ জন। এর মধ্য়ে   দার্জিলিং, আলিপুরদুয়ার, কলকাতা, নদিয়া , উত্তর ২৪ পরগণায় ১ জন করে মৃত্য়ু হয়েছে। তবে মৃত্যু থেমেছে কোচবিহার,  মুর্শিদাবাদ  , হাওড়া, দক্ষিণ দিনাজপুর, বাঁকুড়া,   মলদহ,    কালিংপং,  দুই বর্ধমানে।  রাজ্যের সব জেলার থেকে দৈনিক সংক্রমণ নিয়ে শীর্ষে  কলকাতা। আর একবারে পাশাপাশি  দ্বিতীয়স্থানে উত্তর ২৪ পরগণা।  উত্তর ২৪ পরগণায় একদিনে আক্রান্তের সংখ্যাও রীতিমত চিন্তার কারণ। দক্ষিণবঙ্গে অধিকাংশ জেলার দৈনিক সংক্রমণ প্রায়  ৫০ এর নীচে নেমে গেলেও এই জেলায়  সংক্রমণ দেড়শো ছুঁইছুঁই । 

এবার উত্তর ২৪ পরগণা একদিনে আক্রান্তের সংখ্যা ১২৫ জন।   কলকাতায় একদিনে আক্রান্তের সংখ্যা ১২৯ জন। কলকাতায় মোট  সংক্রমণের সংখ্যা ৩১৪,৭৭১ জন। মহানগরে  মোট মৃতের সংখ্যা ৫০৩২ জন। নতুন করে কোভিড জয়ী হয়েছেন ১১৫ জন। পাশাপাশি দক্ষিণ ২৪ পরগণাতে  একদিনে আক্রান্তের সংখ্যা ৪৪ জন  ।  দার্জিলিং একদিনে আক্রান্তের সংখ্যা ৩৬ জন।  এই দুই জেলার সংক্রমণ আগের থেকে রেকর্ড পরিমাণে কমেছে। বৃহস্পতিবারের  স্বাস্থ্য ভবনের বুলেটিন অনুযায়ী,  একদিনে বাংলায় করোনা আক্রান্ত ৭০৭ জন । যা আগের থেকে অনেকটাই কমেছে।  পশ্চিমবঙ্গে এই অবধি মোট অ্য়াক্টিভ আক্রান্তের সংখ্য়া ৮, ০২৫ জন । বেড়েছে কোভিড জয়ীর সংখ্যাও ।পশ্চিমবঙ্গে একদিনে  সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরেছেন ৭২৫ জন।  বাংলায় কোভিডজয়ীর সংখ্যা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ১৫,৩২,৯২২ জন।  রাজ্যে  সুস্থতার হার  ৯৮.২৪ শতাংশ থেকে বেড়ে  ৯৮.২৯ শতাংশ।  

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *