সুন্দরবনে সাপে কামড়ে নাবালিকার মৃত্যু, ‘প্রাণ ফেরা’র আশায় ভেলায় দেহ ভাসাল পরিবার

সাপের কামড়ে মৃতের শরীরে প্রাণ ফিরবে! অন্ধবিশ্বাসে ভেলায় চাপিয়ে নাবালিকার দেহ নদীতে ভাসিয়ে দিলেন পরিবারের লোকেরা! ঘটনাকে কেন্দ্র করে চাঞ্চল্য ছড়াল সুন্দরবনের কালিদাসপুর গ্রামে। বিষয়টি খতিয়ে দেখছে পুলিস।

সুন্দরবন কোস্টাল থানার মোল্লারখালি অঞ্চলের প্রত্যন্ত গ্রাম কালিদাসপুর। পুরো গ্রামটাই কার্যত নদীবেষ্টিত। স্থানীয় সূত্রে খবর, রোজকার মতোই রাতে মেয়ে পূজাকে সঙ্গে নিয়ে শুয়েছিলেন ওই গ্রামেরই বাসিন্দা দীপক মৃধা। ভোরের দিকে আচমকা প্রচন্ড যন্ত্রণায় কেঁদে ওঠে বছর দশেকের মেয়েটি। বাবাকে ঘুম থেকে তোলে সে। জেগে ওঠেন পরিবারের অন্যন্যরা। সকলেই বুঝতে পারেন, বিছানাতেই সাপে কামড়েছে পূজাকে। এরপর যথারীতি তাকে নিয়ে যাওয়া হয় স্থানীয় গ্রামীণ হাসপাতালে। কিন্তু শেষরক্ষা হয়নি। হাসপাতালে পূজাকে মৃত বলে ঘোষণা করেন চিকিৎসকরা।

মেয়ের নিথর দেহ নিয়ে বাড়িতে ফেরেন পরিবারের লোকেরা। কিন্তু সৎকার করা হয়নি, বরং প্রাণ ফেরার আশায় ভেলায় চাপিয়ে ওই নাবালিকার দেহটি ভাসিয়ে দেওয়া হয় নদীতে! গ্রামের মোড়লরাই কলাগাছ কেটে ভেলা তৈরি করে দেন বলে অভিযোগ। ঘটনাটি জানাজানি হতেই চাঞ্চল্য ছড়িয়ে পড়ে এলাকায়। তদন্তে নেমেছে পুলিস।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *