অবৈধ সম্পর্কের’‌ জেরে মর্মান্তিক পরিণতি গৃহবধূর

অবৈধ সম্পর্কে জড়িয়ে পড়ার অভিযোগ। আর তার জেরে আত্মঘাতী হলেন এক গৃহবধূ। নামখানা থানার শিবরামপুর গ্রাম পঞ্চায়েত এালাকার ঘটনায় চাঞ্চল্য ছড়িয়েছে। জানা গেছে, মৃতার নাম মৌমিতা মণ্ডল (২৮)। স্থানীয় বাসিন্দা ও পরিবার সূত্রে জানা গিয়েছে, বছর দশেক আগে নামখানার হরিপুরের বাসিন্দা রবীন মাইতির মেয়ে মৌমিতার সঙ্গে শিবরামপুরের বাসিন্দা জগদীশ চন্দ্র মণ্ডলের ছেলে শুভাশিষ মণ্ডলের প্রেম করে বিয়ে হয়। কর্মসূত্রে শুভাশিস দীর্ঘদিন বিদেশে ছিলেন। মাস দেড়েক আগে শিবরামপুরের নিজের বাড়িতে ফেরেন শুভাশিস। আর তারপরই এই ঘটনা প্রকাশ্যে আসে বলে অভিযোগ। 

স্বামী বিদেশে থাকায় মৌমিতা অবৈধ সম্পর্কে জড়িয়ে পড়েছিল বলে অভিযোগ শ্বশুর বাড়ির লোকজনের। সম্প্রতি জামাই ষষ্ঠীর সময় এই ঘটনা জানাজানি হতেই মৃতার বাপের বাড়ি থেকে মৌমিতার ফোনটি নিয়ে নেওয়া হয়। সেই মোবাইল ফোন নিয়ে প্রায় অশান্তি লেগে থাকত সংসারে। মৌমিতার ১ বছরের একটি মেয়ে ও রয়েছে।

রবিবার সকাল ১০ টা নাগাদ শুভাশিস পুকুরে কাজ করছিলেন। মৌনিতার শ্বশুর বাড়িতেই ছিলেন। হঠাৎই সবার অলক্ষ্যে নিজের ঘরের ভেতর গলায় ফাঁস দেয় মৌমিতা। প্রতিবেশী এক কিশোরী জানালা দিয়ে মৌমিতাকে গলায় ফাঁস লাগা অবস্থায় দেখতে পেয়ে চিৎকার করে। তখন তাঁর স্বামী ও প্রতিবেশীরা ছুটে এসে মৌমিতার ঝুলন্ত দেহ দেখতে পায়। তড়িঘড়ি তাঁকে দ্বারিকনগর গ্রামীণ হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়। সেখানে মৌমিতাকে মৃত বলে ঘোষণা করেন চিকিৎসকরা। খবর দেওয়া হয় নামখানা থানায়। মৃতদেহ ময়নাতদন্তের জন্য পাঠায় পুলিশ। ঘটনার তদন্ত শুরু হয়েছে। 

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *