ডেল্টা প্লাস নিয়ে উদ্বেগের মধ্যেই বাড়ল দেশের দৈনিক সংক্রমণ

দেশে যখন ডেল্টা প্লাসের চোখ রাঙানি বাড়ছে তখনই বাড়ল দৈনিক কোভিড সংক্রমণ। গত ২৪ ঘণ্টায় দেশে করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন ৫৪ হাজার ৬৯ জন এবং মৃত্যু হয়েছে ১৩২১ জনের। এই সময়ে দেশে কোভিডমুক্ত হয়েছেন ৬৮ হাজার ৮৮৫ জন। দেশে এই মুহূর্তে সক্রিয় করোনা আক্রান্তের সংখ্যা ৬ লাখ ২৭ হাজার ৫৭ জন।

করোনা সংক্রমণ ঠেকাতে অন্যতম হাতিয়ার টিকা। তাই টিকাকরণে দেওয়া হচ্ছে বিশেষ জোর। এখনও পর্যন্ত দেশে টিকা পেয়েছেন ৩০ কোটি ১৬ লাখ ২৬ হাজার ২৮ জন।

এদিকে, বিশ্বের মাথা ব্যাথার কারণ করোনাভাইরাসের ডেল্টা প্লাস ভেরিয়েন্ট। এই প্রজাতির কারণেই কোভিডের তৃতীয় ঢেউ আসতে পারে দেশে, মনে করা হচ্ছে এমনটাই। এই প্রথম দেশে করোনার (Covid 19) এই নয়া প্রজাতিতে আক্রান্ত হয়ে মৃত্যুর ঘটনা ঘটল। মধ্যপ্রদেশে ডেল্টা প্লাস ভেরিয়েন্টে আক্রান্ত হয়ে প্রথম মৃত্যু হয়েছে বলে জানা যাচ্ছে। ঊজ্জয়ন এলাকায় এক মৃত মহিলাপ দেহের নমুনা পরীক্ষা করে দেখা গিয়েছে যে তিনি করোনার ডেল্টা প্লাস ভেরিয়েন্টে আক্রান্ত হয়েছিলেন। উল্লেখ্য, মধ্যপ্রদেশে মোট পাঁচজনের শরীরে করোনার এই নয়া প্রজাতির হদিশ মিলেছে।

জানা যাচ্ছে, গত ২৩ মে পতিদার হাসপাতালে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে এক মহিলার মৃত্যু হয়। ভোপালের একটি ল্যাবের তাঁর দেহের নমুনা পাঠানো হয়েছিল। সেখানেই পরীক্ষা করে দেখা গিয়েছে যে, ওই মহিলা ডেল্টা প্লাস ভেরিয়েন্টে আক্রান্ত হয়েছিলেন।

দেশে কি তবে করোনার তৃতীয় ঢেউ (Covid 19 Third Wave) আছড়ে পড়ল? যেভাবে দেশে একের পর এক ডেল্টা প্লাস ভেরিয়েন্টে (Delta Plus variant) আক্রান্তের সংখ্যা বাড়তে, তাতে সেই সম্ভাবনাই জোরালো হচ্ছে বলে মনে করা হচ্ছে। দেশে করোনার ডেল্টা প্লাস ভেরিয়েন্টে আক্রান্তের সংখ্যা ৪০ ছুঁয়েছে। দেশের বিভিন্ন রাজ্যে করোনার এই নয়া স্ট্রেন ছড়িয়ে পড়েছে। যা ঘিরে উদ্বেগ বাড়ছে।

ভারত সরকারের তরফে জানানো হয়েছে, ডেল্টা প্লাস ভেরিয়েন্ট যথেষ্ট উদ্বেজনক। তার কারণ, করোনার এই নয়া প্রজাতিক আরও দ্রুত হারে সংক্রমণ ছড়াতে পারে। নয়টি দেশের মধ্যে ভারত অন্যতম, যেখানে ডেল্টা প্লাস ভেরিয়েন্টের হদিশ মিলেছে। ভারত ছাড়াও আমেরিকা, ব্রিটেন, পর্তুগাল, সুইৎজারল্যান্ড, জাপান, পোল্যান্ড, নেপাল, চিন ও রাশিয়ায় মিলেছে এই ভেরিয়েন্ট।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *