পর্নোগ্রাফি এবং দেশের আইন, কোন কোন ধারার জালে জড়ালেন শিল্পার স্বামী রাজ

পর্ন ছবি বানানোর অভিযোগে গ্রেফতার করা হয়েছে অভিনেত্রী শিল্পা শেট্টির স্বামী তথা ব্যবসায়ী রাজ কুন্দ্রাকে। মুম্বই পুলিশ জানিয়েছে, ‘হটশট’ নামে একটি অ্যাপের মাধ্যমে এই ভিডিয়ো প্রকাশ করতেন রাজ। ভারতে পর্নোগ্রাফি বেআইনি। তাই রাজের বিরুদ্ধে একাধিক ধারায় অভিযোগ দায়ের হয়েছে।

দেশের পর্ন বিরোধী আইনের কোন কোন ধারায় অভিযোগ দায়ের হয়েছে রাজের বিরুদ্ধে-

ধারা ২৯২: কোনও ভিডিয়ো যদি অশালীন হিসাবে বিবেচিত হয়, বা তার প্রভাব যদি সমাজের পক্ষে ক্ষতিকারক হয়, তা হলে অভিযুক্ত ব্যক্তির বিরুদ্ধে পদক্ষেপ করা যেতে পারে।

ধারা ২৯৩: যদি কোনও ব্যক্তি অশালীন ভিডিয়ো ২০ বছরের কম বয়সি কাউকে দেখানোর চেষ্টা করেন, বিক্রি করার বা ছড়িয়ে দেওয়া চেষ্টা করেন তা হলে এই ধারায় ব্যবস্থা নেওয়া যেতে পারে।

তথ্যপ্রযুক্তি আইনের ধারা ৬৭: তথ্যপ্রযুক্তি আইনের একাধিক ধারায় অভিযোগ দায়ের হয়েছে রাজের বিরুদ্ধে। তার মধ্যে সব থেকে কড়া হল ৬৭ নম্বর ধারা। কোনও ব্যক্তি যদি অশালীন ভিডিয়ো বৈদ্যুতিন মাধ্যমে ছড়িয়ে দেওয়ার চেষ্টা করেন তা হলে এই ধারায় অভিযোগ দায়ের করা যায়।

মহিলাদের অশালীন ভাবে উপস্থাপন (বিরুদ্ধে) ধারা: লেখা, আঁকা, বিজ্ঞাপন অথবা অন্য যে কোনও মাধ্যমে কোনও মহিলাকে অশালীন ভাবে উপস্থাপন করার চেষ্টা করা হলে এই ধারায় অভিযোগ দায়ের করা যায়।

পর্ন ব্যবসায় রাজের কী ভূমিকা ছিল সেটাও জানিয়েছে পুলিশ। মুম্বই পুলিশের দাবি, মুম্বইয়ের উপকণ্ঠে মাড আইল্যান্ডের ভাড়া নেওয়া একটি বাংলোয় দিনভর শুটিং হত। যাঁরা এই ধরনের ছবি বানাতেন, তাঁদের আগেই গ্রেফতার করেছিল পুলিশ। যাঁরা ক্লিপগুলি সম্প্রচার করতেন, তাঁদের খোঁজ চলছিল। এই রকমই একটি প্রযোজনা সংস্থার কার্যনির্বাহী অফিসার উমেশ কামাতকে গ্রেফতার করা হয়েছে। এক পুলিশ আধিকারিক জানিয়েছেন, রাজের সঙ্গে হাত মিলিয়ে কামাত দেশের বাইরে বসে পর্ন ছবি ছড়িয়ে দিতে সাহায্য করতেন। তদন্তে নেমে মুম্বই পুলিশের অপরাধ দমন শাখা জানতে পেরেছে, কুন্দ্রা প্রথম দিকে অ্যাপ থেকে প্রতিদিন ২-৩ লক্ষ টাকা আয় করেছেন। লকডাউনে সেই আয় বেড়ে হয়েছিল ৬-৮ লক্ষ টাকা।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *