শরীর নিয়ে কুমন্তব্য, অপমানের উচিত জবাব দিলেন ‘মা’ সিরিয়ালের ঝিলিক

একটা সময় ছিল যখন বাংলার ঘরে ঘরে মহিলারা সন্ধ্যা হলেই স্টার জলসার (Star Jalsha) ‘মা’ (Maa) সিরিয়ালটি দেখার জন্য অধীর আগ্রহে অপেক্ষা করে বসে থাকতেন। ধারাবাহিকে ছোট্ট ঝিলিক (Jhilik) তার মাকে খুঁজে পাওয়ার জন্য কতইনা চড়াই-উৎরাই পেরিয়েছে! কত বাধা-বিপত্তি তাকে স্পর্শ করেছে। ধারাবাহিকটি দেখার সময় দর্শক তার সঙ্গে যেন নিজের সংযোগ স্থাপন করতে পারতেন।

কোঁকড়া চুলের সেই ছোট্ট মেয়েটি আজ অনেক বড় হয়েছে। এখন সে আর ছোটটি নেই। রীতিমতো তন্বী হয়ে উঠেছে সেদিনের ছোট্ট ঝিলিক অর্থাৎ তিথি বসু (Tithi Basu)। টেলিভিশনের পর্দায় এখন আর বড় একটা দেখা যায় না তাকে। তবে সোশ্যাল মিডিয়ায় সে বরাবর অ্যাক্টিভ। অনুরাগীদের সঙ্গে আজও তার সংযোগ বজায় আছে। ইনস্টাগ্রামে লক্ষ লক্ষ মানুষ তাকে ফলো করছেন। অনুরাগীদের জন্য নিজের বিভিন্ন ছবি এবং ভিডিও শেয়ার করে থাকে সে।

তার বিভিন্ন ছবি এবং নাচের ভিডিও অনুরাগীরা বেশ পছন্দ করেন। তবে এতদিন তার হেভিওয়েট চেহারা নিয়ে সমাজমাধ্যমে কিন্তু তাকে নিয়ে জোর সমালোচনা হয়ে এসেছে। তিথির বিভিন্ন ছবিতে তার শরীরের বাড়তি মেদ নিয়ে তাকে কটাক্ষ করেছেন নেটিজেনরা। ছোট থেকেই তিনি স্বাস্থ্যবতী। সময়ের সঙ্গে সঙ্গে তার শরীরের মেদ ক্রমাগত বেড়েছে।

তবে তাতে অবশ্য খুব বেশি মাথা ঘামাননি তিথি। ছোট থেকেই মডেলিংয়ের দারুণ শখ ছিল তার। স্থূল চেহারাতেই হট এন্ড সেক্সি ফটো তুলে সমাজ মাধ্যমে আপলোড করতেন তিথি। তা থেকে একদিকে যেমন নেটিজেনদের প্রশংসা পেতেন তিনি, অন্যদিকে আবার চেহারা নিয়ে বারবার বডিশেমিংয়ের শিকারও হতে হয়েছে তাকে।

তবে এবার সমালোচকদের কড়া জবাব দিলেন তিথি বসু। সমাজ মাধ্যমে নিজের দু’টি ছবি পোস্ট করেছেন অভিনেত্রী। প্রথম ছবিতে তিথির স্থূলকায় চেহারা ধরা পড়েছে। এই ছবিটি কয়েক দিনের বেশ পুরনো। সেখানে তার কোমরের মেদ, পেটে চর্বির ভাঁজ স্পষ্ট ধরা পড়েছে। আর দ্বিতীয় ছবিতে তিনি নিজের বর্তমান ছবি তুলে ধরেছেন। সেখানে কোথায় কোমরের মেদ? শরীরের বাড়তি চর্বিই বা কোথায়? রীতিমতো স্লিম এবং ফিট অবতারে ধরা দিয়েছেন অভিনেত্রী!

এই পোস্টের নিচে লম্বা ক্যাপশন লিখেছেন তিথি। তিনি জানিয়েছেন, স্থূলকায় চেহারা থেকে বর্তমান স্লিম অ্যান্ড ফিট অবতারে পৌঁছানোর পথটা তার কাছে বড় সহজ ছিল না। চেহারা নিয়ে বারবার কটাক্ষের সম্মুখীন হতে হয়েছে তাকে। অভিনেত্রী ক্যাপশনে লিখেছেন, “ওইটা থেকে এটা হওয়া সহজ ছিলনা। দিনের পরদিন অসংখ্য বডিশেমিং সহ্য করেছি। সবাই মোটা বলে মজা করত।”

তিনি আরও লিখেছেন, “সকলেই জানে আমি কতটা খেতে ভালোবাসি। আজও তাই। তবে খাওয়ার সাথে সাথে এখন ওয়ার্ক আউটও করি। দিন গুলোকে আরও এক্সাইটিং লাগে। আমি বুঝেছি যেকোনো শেপেই আমি সুন্দর।” এতদিন ভারী চেহারা নিয়ে নেটিজেনদের ভারী ভারী মন্তব্য শুনতে হয়েছে তাকে। তবে আজ সমস্ত অপমানের বিরুদ্ধে গিয়ে সপাটে জবাব দিলেন ঝিলিক।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *