সেক্সটয় নিয়ে বেড়িয়ে এল চাঞ্চল্যকর তথ্য, জানুন বিস্তারিত

একুশ শতকে বসবাস করেও বাকি পৃথিবীর অন্যান্য দেশের তুলনায় অনেকটাই পিছিয়ে রয়েছি আমরা। যৌনতা আমাদের দেশে একধরনের ট্যাবু হওয়ার দরুন এই বিষয়ে খোলামেলা আলোচনা থেকে বিরত থাকি আমরা। টিভিতে কখনো যৌন দৃশ্যেও আড়চোখে দেখি বাকিদের মুখের অভিব্যক্তি। এরকম সমাজে থেকে অনেকেই হয়তো সেক্স টয় ব্যবহার করে যৌনতৃপ্তি উপভোগ করার কথা স্বপ্নেও ভাবেন না।

তবে তার মানে কিন্তু এই নয় যে সারা বিশ্ব জুড়ে সেক্স টয়ের ব্যবসা এমনিই অবহেলিত। উল্টে সমীক্ষা বলছে গত আর্থিক বর্ষে সারা বিশ্বে সেক্স টয়ের ব্যবসা কুড়ি লক্ষ পাউন্ডেরও বেশি অঙ্কের অর্থের। আরো শুনলে অবাক হবেন যে, ভারতে যতই যৌনতা নিয়ে ট্যাবু থাকুক না কেন, ভারত এবং চিনেই কিন্তু এই ব্যবসা বেশি করে সাফল্যের মুখ দেখছে। এছাড়াও ইউরোপ এবং ইতালিতেও এই ব্যবসা চলছে রমরমিয়ে।

সেক্স টয় নিয়ে এমন ধারণা অনেকেরই আছে যে, এই ধরনের খেলনা শুধু ব্যবহার করেন মহিলারা। কিন্তু এই ধারনা একেবারেই ভুল। মহিলাদের পাশাপাশি পুরুষরাও সমান তালে সেক্সটয় ব্যবহার করেন সারা বিশ্ব জুড়ে। সেক্সটয় বিক্রির অন্যতম বৃহৎ বাজার হলো অনলাইন সাইট গুলি। ২০০৩ সাল থেকে ব্যবসা শুরুর পর ই-কমার্স ভিত্তিক সেক্স টয় এর খুচরা বিক্রির প্রতিষ্ঠান ‘লাভহানি’র বিক্রি ছাড়িয়ে গেছে এক লাখ পাউন্ড- যা কিনা প্রতিবছরে ৩৫% হারে বেড়েছে। শুধুমাত্র অবিবাহিত মহিলা-পুরুষরাই যে সেক্সটয় ব্যবহার করে এই ধারনা একেবারেই ভুল। উল্টে সেক্সটয় বিবাহিত দম্পতিদের মধ্যেও যৌনতার আনন্দ কয়েকগুন বাড়িয়ে দেয়।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *