আরও সুন্দরী হতে উলঙ্গ হয়ে ২০ হাজার টাকা খরচ করে কাদা মাখলেন উর্বশী

রানী ক্লিওপেট্রা (Cleopatra)! ইতিহাস প্রসিদ্ধ সুন্দরী। ইতিহাসে তার সময়কাল পেরিয়ে যাওয়ার এত বছর পরেও আজ নারীর সৌন্দর্য্যের (Beauty) প্রসঙ্গে বারংবার তার তুলনা টানা হয়। প্রায় ২ হাজার বছরেরও আগে এই মিশরীয় সুন্দরী রানীর সৌন্দর্য্যে মুগ্ধ ছিল সারা বিশ্ব। তার সমকালীন কোনও নারীই সৌন্দর্য্যের নিরিখে তাকে টেক্কা দিতে পারতেন না। রানী ক্লিওপেট্রার মতো রূপ-সৌন্দর্য্য পেতে পৃথিবীর বিভিন্ন প্রান্তের নারীরা আজও তার রূপ চর্চার (Beauty tips) পদ্ধতিগুলি অনুসরণ করেন।

রানী ক্লিওপেট্রা তার সৌন্দর্য্য ধরে রাখতে দুধ দিয়ে স্নান (Milk Bath) করতেন। একথা প্রায় সকলেরই জানা। তবে ত্বকের উজ্জ্বলতা বৃদ্ধি এবং টানটান ভাব বজায় রাখতে তার অত্যন্ত পছন্দের একটি স্নান ছিল কাদার স্নান (Mud bath)! বর্তমান প্রজন্ম অবশ্য কাদার স্নানের গুনাগুন সম্পর্কে বলতে গেলে প্রায় অজ্ঞ। সারা গায়ে কাদা মেখে বসে থাকার কথা বললেই ছিটকে পালাবেন সকলে! তবে জানেন কি বলিউডের এক সুন্দরীর সৌন্দর্য্যের রহস্যও কিন্তু এই কাদার মধ্যে লুকিয়ে আছে?

তিনি বলিউড সুন্দরী উর্বশী রাউটেলা (Urvashi Rautela)। সৌন্দর্য্যের নিরিখে তিনিও বলতে গেলে বলিউডের (Bollywood) প্রথম সারির অভিনেত্রী। রানী ক্লিওপেট্রাকে (Queen Cleopatra) স্বচক্ষে দেখার সৌভাগ্য হয়নি কারোর। তবে উর্বশীকে দেখলে কিন্তু সেই আশাপূরণ হতে পারে। এই সুন্দরীর অসাধারণ সৌন্দর্য্যের রহস্য সম্প্রতি প্রকাশ্যে এসেছে। সম্প্রতি উর্বশী নিজের ইনস্টাগ্রাম  প্রোফাইলে নিজের সর্বাঙ্গে কাদামাখার (Mud bath) একটি ছবি পোস্ট করেছেন।

এই পোস্টে দেখা যাচ্ছে উর্বশী সর্বাঙ্গে কাদা মেখে সাদা রঙের একটি টুলের উপর বসে আছেন। চোখ দুটি বন্ধ, বাম হাত ডান হাতের বাহু স্পর্শ করে রয়েছে। এক নজর দেখলে হঠাৎ করেই তাকে যেন কোনও শিল্পীর ভাস্কর্য বলে মনে হবে নেটিজেনের। তবে ভালো করে খুঁটিয়ে লক্ষ্য করলেই বোঝা যাচ্ছে মাটির পুতুল নয়, রক্তমাংসের মানবীই সর্বাঙ্গে কাদা মেখে বসে রয়েছেন। এটিই উর্বশীর সৌন্দর্য্য থেরাপি (Beauty treatment)! যা দেখে স্বভাবতই অবাক হয়েছেন নেটিজেন।

প্রসঙ্গত, রূপচর্চায় কাদামাটির ব্যবহারের প্রচলন কিন্তু বহু পুরনো। মহিলারা আজও সৌন্দর্য্যচর্চায় মুলতানি মাটির (Multani mitti) ব্যবহার করে থাকেন। ত্বকের জন্য প্রয়োজনীয় খনিজ উপাদানে ভরপুর এই মাটি একদিকে যেমন ত্বকের লাবণ্য বৃদ্ধি করে, অপরদিকে নিয়মিত ব্যবহারে চেহারায় বয়সের ছাপ পড়তে দেয় না। চেহারায় কাদামাটির প্রলেপ লাগানোর পাশাপাশি যদি সর্বাঙ্গেও এই প্রলেপ লাগানো যায় তাহলে স্বভাবতই সৌন্দর্য বাড়বে বৈ কমবে না।

পোস্টের নিচে ক্যাপশনে উর্বশী উল্লেখ করেছেন, ব্যালেরিক বিচ থেকে আনানো এই লালমাটির (Red Mud) প্রলেপ তার শরীরকে বিশুদ্ধ রাখবে, তার ত্বক থেকে টক্সিন দূর করে ত্বক কোমল করবে, রক্ত চলাচল বৃদ্ধি পাবে এবং শরীরের ব্যথা বেদনাও দূর করবে তার এই মাড থেরাপি।

তিনি উল্লেখ করেছেন, রানী ক্লিওপেট্রা অত্যন্ত পছন্দ করতেন এই কাদার স্নান। রোমান দেবতা ভেনাস এই মাটিকে আয়না হিসেবে ব্যবহার করতেন! ২০ হাজার টাকা খরচ করে উর্বশী এই মাড থেরাপি নিচ্ছেন। রানী ক্লিওপেট্রা এবং উর্বশীর মতো সৌন্দর্য পেতে গেলে আপনিও একবার মাড থেরাপি নিয়ে দেখতে পারেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *