তোমার বিয়ে অ্যারেঞ্জ নাকি লাভ! ফ্যানের প্রশ্নে বিয়ে নিয়ে প্রথম মুখ খুললেন জিৎ

টলিউডের (Tollywood) সুপারস্টার জিৎ (Jeet) টালিগঞ্জের মোস্ট হ্যান্ডসাম অভিনেতা। তার অভিনয় জীবন শুরু হয়েছিল বেশ কয়েক দশক আগে। প্রথম থেকেই দর্শক তাকে গ্রহণ করেছেন। বিশেষত মহিলা অনুরাগীদের হার্টথ্রব হয়ে উঠেছিলেন তিনি। তার মহিলা অনুরাগীর সংখ্যা আজও কিছু কম নয়। আবার অভিনয় করতে করতেই টলিউডের একাধিক নায়িকার সঙ্গে তার প্রেমের গুঞ্জনও চর্চার বিষয়বস্তু হয়ে উঠেছিল। তবে কোনও সম্পর্কই পরিণতি পায়নি।

জিৎ-কোয়েল জুটি, জিৎ-স্বস্তিকা জুটি টলিউডের সবথেকে হট জুটিগুলির মধ্যে ছিল অন্যতম। তাদের পর্দার প্রেম যদি বাস্তবেও সত্যি হয়ে ধরা দিত তাহলে বরং খুশীই হতেন দর্শক। তবে টলিউডের সুন্দরীদের উপেক্ষা করে জিৎ তার জীবনসঙ্গীনী হিসেবে বেছে নিয়েছেন মোহনাকে। আজ থেকে প্রায় ১০ বছর আগে, ২০১১ সালে মোহনার সঙ্গে গাঁটছড়া বাঁধেন জিৎ।

তাদের এই বৈবাহিক সম্পর্ক ভালোবাসা, নাকি দেখাশোনা করে সম্পর্ক গড়ে তোলার পরিণতি? জানতে চেয়েছিলেন জিতের জনৈক অনুরাগী। সেই অনুরাগীর প্রশ্নের জবাব দিলেন অভিনেতা। অ্যারেঞ্জ না লাভ? আসলে এই প্রশ্নের জবাব কখনও জিতের থেকে সরাসরি পাওয়া যায়নি। তাই “Ask Me Something” বিভাগে অভিনেতা যখন কিছু প্রশ্ন করার প্রস্তাব রাখেন তখন সেই বিভাগে নিজের কৌতুহলের নিবৃত্তি করার প্রচেষ্টা চালান জনৈক অনুরাগী।

জিতের স্ত্রী মোহনা ছিলেন লখনৌয়ের একজন স্কুল শিক্ষিকা। রিল জগতের সঙ্গে তার কোনও যোগাযোগই ছিল না। আজও তিনি নিজেকে পর্দার বাইরে রাখতেই পছন্দ করেন। ১১ বছরের বিবাহিত জীবনে স্বামী এবং এক কন্যাকে নিয়ে সুখে সংসার করছেন তিনি। স্বামী টলিউড অভিনেতা বলে কথা। তার উপর আবার তার নিজস্ব প্রোডাকশন হাউজ রয়েছে। ছবির কাজ নিয়ে বরাবর ব্যস্ত থাকেন তিনি। অতএব সংসার সামলানোর ভার পুরোটাই মোহনার কাঁধে।

তাহলে আসুন এবার চোখ রাখা যাক সুপারস্টারের উত্তরের উপর। অনুরাগীর প্রশ্নের জবাব দিয়ে তার স্ক্রিনশট তুলে ইনস্টাগ্রাম স্টোরিতেও শেয়ার করেছেন অভিনেতা। নেটিজেনদের মধ্যে যারা জিতের বিয়ে সম্পর্কে জানতে উৎসুক তাদের জন্য তার জবাব, “Arrange Come Love”। অর্থাৎ দেখাশোনা করেই বিয়ে হয়েছিল টলিউড সুপারস্টারের। বাকি রইলো প্রেম, সে তো বিয়ের পরে হতেই হতো।

আপাতত কাজ নিয়ে বেজায় ব্যস্ত অভিনেতা। ইতিমধ্যেই নিজের প্রযোজনা সংস্থা থেকে বেশ কয়েকটি সিনেমা রিলিজ করে ফেলেছেন জিৎ। আবার এই করোনা পরিস্থিতিতে হল মালিকদের বিনামূল্যে নিজের প্রোডাকশন হাউসের সিনেমা দর্শকদের দেখানোর প্রস্তাবও রেখেছেন তিনি। এই কঠিন পরিস্থিতিতে বাংলা সিনেমাকে বাঁচিয়ে রাখতে বাড়িয়ে দিয়েছেন সাহায্যের হাত। তার সঙ্গে ‘ডান্স বাংলা ডান্স’ এর বিচারকের দায়িত্বও সামলাচ্ছেন তিনি।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *